1. admin@tbcnews24.com : admin :
মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৯:২৬ অপরাহ্ন

বীর নিবাস পাচ্ছেন আখাউড়ার ৭৭ বীর মুক্তিযোদ্ধা

ডেক্স রিপোর্ট//
  • আপডেট সময় : সোমবার, ২৮ মার্চ, ২০২২
  • ৩৫ বার পঠিত

মুজিববর্ষ উপলক্ষে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার ৭৭ জন অসচ্ছল, দরিদ্র ও অসহায় বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবার পাচ্ছে বীর নিবাস। এরই মধ্যে ১১টি বীর নিবাস নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। এর মধ্যে পৌর শহরে দুটি ও উপজেলা পর্যায়ে রয়েছে ৯টি। প্রকল্পের কাজও এগিয়ে যাচ্ছে দ্রুতগতিতে।

এছাড়া বাকি ৬৬টি বীর নিবাস বরাদ্দের জন্য বীর মুক্তিযোদ্ধাদের চূড়ান্ত নামের তালিকা অনুমোদন করা হয়েছে বলে উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে।

আখাউড়ার ইউএনও রুমানা আক্তার, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তাসহ উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা নিয়মিত বীর নিবাসের নির্মাণের কাজ তদারকি করছেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস সূত্রে জানা গেছে, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপন মোতাবেক গঠিত কমিটি উপজেলার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মধ্য থেকে অসচ্ছল ও বাড়ি পাওয়ার উপযুক্তদের বাছাই করে ১১ জনের নাম তালিকাভুক্ত করেছে। তারা হলেন- আখাউড়া দক্ষিণ ইউনিয়নের হীরাপুর বড় কুড়িপাইকা গ্রামের জহিরুল ইসলাম সম্রাট, হীরাপুর গ্রামের মীর মোশারফ ইউসুফ, আখাউড়া উত্তর ইউনিয়নের আমোদাবাদ গ্রামের আহাম্মদ মিয়া, পৌর শহরের তারাগন এলাকার রোজিনা খাতুন, মো. শহীদ উল্লাহ সাদেক, মোগড়া ইউনিয়নের নয়াদিল গ্রামের আব্দুল হামিদ, গঙ্গানগরের মো. ফরিদ উদ্দিন, বনগজের মো. সানু মিয়া, মনিয়ন্দ ইউনিয়নের আব্দুর রশিদ, অনিমা রানী দাস, ও ধরখার ইউনিয়নের রানীখার গ্রামের হেলাল উদ্দিন চৌধুরী। ২ শতাংশ খাস জমিসহ প্রত্যেক উপকারভোগীকে দেওয়া হবে বারান্দাসহ দুটি করে বেডরুম-বাথরুম, একটি করে ড্রয়িং-ডাইনিং রুম, বিদুৎ সংযোগ ও পানির পাম্প।

মোগড়া ইউনিয়নের নয়াদিল গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ মিয়া বলেন, বর্তমান সরকার বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যে সম্মান দিয়েছে তা ভুলে যাওয়ার মতো নয়। আমাদের জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান আখ্যা দিয়ে মাসে মাসে সম্মানী ভাতা, মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয় মর্যাদা দিয়েছে। এখন স্থায়ী বাসস্থানও দিচ্ছে। আমাদের জন্য এত উদ্যোগ গ্রহণ করায় আমরা সরকার প্রধান শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞ।

আখাউড়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা তাপস চক্রবর্তী বলেন, বীর নিবাস নির্মাণের কাজ দ্রুতগতিতে হচ্ছে। কাজে অনিয়ম এড়াতে প্রতিনিয়ত তদারকি করা হচ্ছে। প্রথম প্যাকেজে ১১টি বাড়ির কাজ চলছে। দ্বিতীয় প্যাকেজে ৬৬টি বাড়ি করা হবে। সবকিছু প্রক্রিয়াধীন, অর্থ বরাদ্দ পাওয়া মাত্র কাজ শুরু হবে।

আখাউড়ার ইউএনও রুমানা আক্তার বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বাড়ি নির্মাণের কাজ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রকল্পের কাজ নিয়মিত তদারকি করা হচ্ছে। এখন পর্যন্ত কোনো অনিয়ম হয়নি। কোনো ঠিকাদার বা সংশ্লিষ্টরা অনিয়ম করলে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা