1. admin@tbcnews24.com : admin :
রবিবার, ০৭ অগাস্ট ২০২২, ১০:১৫ অপরাহ্ন

জাতীয় ঈদগাহ এলাকায় চার স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা: ডিএমপি কমিশনার

টিবিসি নিউজ অনলাইন ডেক্স:
  • আপডেট সময় : শুক্রবার, ৮ জুলাই, ২০২২
  • ৩২ বার পঠিত

ঈদুল আজহাকে কেন্দ্র করে জাতীয় ঈদগাহ এলাকায় চার স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, আগে থেকেই ডিএমপির বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিট, ডগ স্কোয়াড দিয়ে সুইপিং করানো হচ্ছে। পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদাপোশাকে পর্যাপ্তসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন থাকবে। পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় থাকবে। জাতীয় ঈদগাহে স্থাপিত অস্থায়ী কন্ট্রোল রুম থেকে সিসিটিভি ক্যামেরাগুলো রিয়েল টাইম মনিটরিং করা হবে। যে যেখানে নামাজ পড়েন না কেন, ডিএমপি সার্বক্ষণিক মানুষের নিরাপত্তায় রয়েছে।

আজ শুক্রবার বেলা ১১টায় জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে নিরাপত্তাব্যবস্থা পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

ঈদের জামাত কেন্দ্র করে জঙ্গি হামলার আশঙ্কা নেই, এমন বলা যাচ্ছে না উল্লেখ করে তিনি বলেন, জঙ্গিদের অনলাইনে তৎপরতা লক্ষ করা গেছে। তবে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে জাতীয় ঈদগাহে থাকবে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা। জঙ্গি হামলা প্রতিরোধে পীর সাহেবদের মাজার ও শিয়াদের ঈদগাহগুলোতে বেশি নিরাপত্তা দেওয়া হবে।

সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে ঈদগাহ ময়দানে আসার অনুরোধ জানিয়ে ডিএমপি কমিশনার বলেন, নামাজ পড়তে আসা মুসল্লিরা জায়নামাজ ও ছাতা আনতে পারবেন। তবে মুঠোফোন না আনার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, মুঠোফোন আনলে পাঞ্জাবির পকেটে না রেখে তা যেন হাতে রাখা হয়। কারণ, একশ্রেণির মানুষ নামাজ পড়তে না এসে চুরির সুযোগ খোঁজে। তবে ঈদগাহে ব্যাগসহ অন্য কিছু আনার সুযোগ থাকবে না।

ঈদের ছুটিতে ঢাকার নিরাপত্তাব্যবস্থা সম্পর্কে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে ডিএমপি কমিশনার বলেন, ‘যে যেখানেই যান, আপনার মূল্যবান সম্পদের হেফাজত নিজ থেকে করবেন। যাঁরা ঢাকা থেকে বাড়িতে যাবেন, তাঁদেরকে বাসার গুরুত্বপূর্ণ জিনিসপত্র, বিশেষ করে স্বর্ণ ও টাকা ব্যাংকের লকারে রেখে যাওয়ার অনুরোধ করছি।’

ডিএমপি কমিশনার বলেন, শপিং মল ও স্বর্ণের দোকানের নিরাপত্তার জন্য ১৫ দিন আগে থেকেই মার্কেটের নিরাপত্তাকর্মীদের তথ্য নেওয়া হয়েছে, যাতে অপরাধ করে কেউ পালিয়ে থাকতে না পারেন। কারণ, বিভিন্ন চুরির ঘটনার সঙ্গে অনেক নিরাপত্তাকর্মীর যোগসাজশ থাকে।

মোটরসাইকেল চলতে দেওয়া নিয়ে কমিশনার বলেন, ‘শর্ত সাপেক্ষে মোটরসাইকেল চলতে দেওয়া হবে। সারা দেশে এক ফরম্যাটে পাস ফরম করা হয়েছে। যাঁর যাওয়া প্রয়োজন, তাঁকে অনুমতিপত্র নিয়ে যেতে হবে। আমাদের সবার উদ্দেশ্য মানুষকে নিরাপদে যেতে দেওয়া, কাউকে আটকে রাখা নয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

ফেসবুকে আমরা